আমাদের সাইটে স্বাগতম


হ্জ্ব প্রাক-নিবন্ধন (Pre-registration) ও নিবন্ধন (Registration)সংক্রান্ত তথ্যাবলী

 

০১। ২০১৬ সন হতে প্রাক-নিবন্ধন ব্যবস্থা চালু হয়েছে। তখন থেকেই হজ্বযাত্রীদের প্রাক-নিবন্ধন ব্যবস্থার ক্রমিক নম্বর চালু হয়ে অদ্যবদী চালু রয়েছে। প্রতি হজ্ব মৌসুমে এই Hajj Database এর ক্রম (NG Serial) অনুসারেই বাংলাদেশের হজ্ব কোটা অনুযায়ী সরকার গমন্ছেুকদের চুড়ান্ত নিবন্ধন এর জন্য বাছাই করেন। প্রাক-নিবন্ধন সিরিয়াল (NG Serial) কোন সনের জন্য নির্ধারিত নয়।
০২। প্রাক-নিবন্ধন এর জন্য যা প্রয়োজনীয়-

    =) প্রাক-নিবন্ধন ফি – ৩০৭৫২/- (ত্রিশ হাজার সাতশত বায়ান্ন) টাকা।
    =) প্রাপ্ত বয়স্কদের জন্যঃ NID/SMART CARD এর উভয় পাতার ফটোকপি, সচল মোবাইল নম্বর, সঠিক ঠিকানা ও পেশা।
    =) অপ্রাপ্ত বয়স্কদের জন্য (বয়স ১৮ এর নিচে): জন্মনিবন্ধন এর মূলকপি অথবা স্পষ্ট SCAN COPY, SCANED ছবি, বাবা-মায়ের নাম, ঠিকানা ও সচল মোবাইল নম্বর।
    =) বিদেশে অবস্থানরত (NRB) দের জন্যঃ মেয়াদী বাংলাদেশী পাসপোর্ট, জন্মনিবন্ধন এর মূলকপি অথবা স্পষ্ট SCAN COPY, SCANED ছবি, FOREIGN DOCUMENT (বিদেশী SCANED পাসপোর্ট, বিদেশী SCANED DRIVING LICENSE বা WORK PERMIT)
    =) বিদেশে অবস্থানরত (NRB) ওবাচ্চাদের সঙ্গী পুরুষ ও মহিলাদের মাহরাম পুরুষ লাগবে।

০৩। ব্যাংক কোন হজ্বযাত্রীর প্রাক-নিবন্ধন REFUND আবেদন করলে REFUND ফি বাবদ সরকার সর্বমোট ৫০০০/- (পাঁচ হাজার) টাকা কেটে রাখবেন এবং পরবর্তী বছর প্রাক-নিবন্ধন ফি এর বাকী টাকা সরকার ফেরত দেয়া সাপেক্ষে হজ্বযাত্রী ফেরত পাবেন।

০৪। চুড়ান্ত নিবন্ধন এর পূর্বে আবশ্যিক ভাবে নির্ধারিত মেয়াদী বাংলাদেশী পাসপোর্ট অফিসে জমা করতে হবে। পাসপোর্ট ছাড়া চুড়ান্ত নিবন্ধন সম্ভব নয়। বিশেষ কারণ ব্শতঃ পাসপোর্ট জমা দিতে না পারলে ও অবশ্যই ফটোকপি জমা দিতে হবে। এখানে বিশেষ ভাবে উল্লেখ্য যে পাসপোর্ট চাহিবামাত্র/নির্ধারিত সময়ে অফিসে জমা দিতে হবে এবং বিদেশী পাসপোর্টে হজ্বযাত্রা কোন সুযোগ নাই।

০৫। চুড়ান্ত নিবন্ধনের সুযোগ পাওয়া হজ্বযাত্রীদের নিবন্ধন ফি ও অন্যান্য টাকা নির্ধারিত ব্যাংক একাউন্টে যথা সময়ে প্রদান করতে হবে। টাকা প্রদানে বিলম্ব হলে চুড়ান্ত নিবন্ধন হবে না।

০৬। চুড়ান্ত নিবন্ধনের পর কেউ হজ্বযাত্রা বাতিল করলে তার সম্পূর্ন প্যাকেজ রেট এর বিমান ভাড়া ব্যতিত সমস্ত টাকা প্রদান করতে হবে। উল্লেখ্য যে প্রতি বৎসর হজ্ব মৌসুম এর পূর্বে সরকার হজ্ব প্যাকেজ ঘোষনা করে থাকে।

০৭। কোন হজ্বযাত্রী চুড়ান্ত নিবন্ধনের সুযোগ পেয়ে নিবন্ধন না করলে অর্থাৎ হজ্বে গমন না করলে পরবর্তী বৎসর আবার একই ভাবে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে চুড়ান্ত নিবন্ধন বা হজ্ব গমণের সুযোগ পাবেন। এভাবে পর পর ২ বছর সুযোগ পেয়ে ও হজ্বে গমন না করলে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তির প্রাক-নিবন্ধন সরকার বাতিল করবেন। তৃতীয় বৎসর এই প্রাক-নিবন্ধন আর ব্যবহার করা যাবে না।

বি: দ্র: SCAN কৃত সকল ডকুমেন্ট ভাল রেজুলেশন ও কালার হতে হবে।